Friday , November 27 2020
Breaking News
Home / Exception / মায়ের ম’রদেহের পাশে নিশ্চুপ দাঁড়িয়েছিল শিশুটি

মায়ের ম’রদেহের পাশে নিশ্চুপ দাঁড়িয়েছিল শিশুটি

ব্যস্ত রাস্তার পাশে পড়ে থাকা মায়ের মুখটা আকাশমুখী। মাকে দেখার জন্য ভিড় করেছে অচেনা মানুষগুলো। তিন বছরের তন্বী তখনও বুঝে উঠতে পারছিল না, কী হয়েছে তার মায়ের। নির্বাক দাঁড়িয়েছিল নিষ্প্রাণ দে’হের হাত ধরে, আর ফ্যালফ্যালিয়ে তাকাচ্ছিল প্রত্যক্ষদর্শীদের মুখপানে।

শিশুটি কী বুঝতে পেরেছে এ ধরাতে তার সবচেয়ে আপনজন আর নেই? চলে গেছেন চি’রতরে পরপারে? না বুঝলেই বা কী হবে — এ যেন চরম বাস্তবতা।

শনিবার (২৪ অক্টোবর) বিকেলে হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের শুঁটকি ব্রিজের কাছে জোনাকী আক্তার (২২) নামে এক নারীর ম’র’দে’হ উ’দ্ধার করে পু’লিশ। তখন তিন বছর বয়সী মেয়ে তন্বী পড়ে থাকা মায়ের হাত ধরে দাঁড়িয়েছিল।

এরপর পুলিশ ম’র’দে’হটি ম’য়নাতদ’ন্তের জন্য হবিগঞ্জ আড়াইশ’ শয্যার আধুনিক জেলা সদর হা’সপাতালে পাঠায়। একইসঙ্গে মেয়েটিকেও নিয়ে যায় থানায়।

আরও পড়ুন : যারা চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহিকে ফেসবুকে অনুসরণ করেন তারা জানেন প্রেমময় স্ট্যাটাসে জুড়ি নেই তার। প্রায় সময়ই নতুন প্রেমে পড়ার ইঙ্গিত দেন তিনি৷ অনেক স্ট্যাটাসে থাকে রহস্য৷

যা নিয়ে চলে কানাঘুষা। প্রশ্নের মুখে পড়ে তার সংসারও। অনেকেই কৌতুহলী হয়ে উঠেন,স্বামী অপুর সঙ্গে মাহির সংসার কি তবে ভেঙ্গেই গেল?

এর আগেও বেশ কয়েকবার বিচ্ছেদের গুঞ্জনে শিরোনামে এসেছেন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত সবই গুজব বলে প্রমাণ হয়েছে৷ সম্প্রতি আবারও মাহির স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে তার সংসার বিষয়টি আলোচনায় এলে তার জবাব দিতে গিয়ে সেখানেও পুরো ব্যাপারটি গুজব বলে উড়ালেন ‘পোড়ামন’খ্যাত এ নায়িকা।

গতকাল ২৩ অক্টোবর এক দেশীয় টেলিভিশনে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, তার যখন মন খারাপ থাকে তখন তিনি প্রেমময় এসব স্ট্যাটাস দেন৷ মাহির ভাষ্য, ‘আমার যখন অনেক রাগ হয় তখন আসলে মনে থাকে না যে আমি কে, আমাকে অনেকেই দেখছেন ফেসবুকে। আমি কিছু লিখল সেগুলো কন্ট্রোভার্সি তৈরি করতে পারে। জাস্ট নিজের রাগ এড়ানোর জন্য এসব স্ট্যাটাস দেই।’

দাম্পত্য জীবন নিয়ে তিনি বলেন, ‘অপুর সঙ্গে আমি অনেক রাগ করি৷ ওকে তো ২৪ ঘণ্টায় আমি ২৭ বার ছেড়ে দেই। সমস্যাটা হলো ও রাগ করে না। তর্ক করে না।’ এ সাক্ষাৎকারে নিজের ক্যারিয়ারের প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির কথাও জানান মাহি। সেইসঙ্গে বলেন, শুধুমাত্র টাকার জন্য নয়, অনেক সময় অনুরোধের ঢেঁকি গিলতেও মানহীন সিনেমায় কাজ করতে হয়।

পাশাপাশি মাহি আক্কেপ করেন শাবনূর-পপিদের যুগের মতো হলভর্তি দর্শক না থাকায়। প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে পারভেজ মাহমুদ অপু নামে এক ব্যবসায়ীকে বিয়ে করেন মাহিয়া মাহি। দুজন মিলে বেশ উপভোগ্য দাম্পত্য জীবন রচনা করে চলেছেন।

About khan

Check Also

না খেয়ে থাকতে পারি, কিন্তু শা’রীরিক স’ম্পর্ক ছাড়া থাকতে পারি না: সামান্থা

না খেয়ে থাকতে পারলেও শারী’রিক স’ম্পর্ক ছাড়া থাকতে পারবেন না বলে মন্তব্য করেছেন তামিল ও ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page