Monday , September 20 2021
Breaking News

বিসিএস ভাইভা’র নমুনা প্রশ্ন

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃষি সম্প্রসারণ বিষয়ে ২০১৪ সালে অনার্স ও ২০১৬ সালে মাস্টার্স করেছি। এটিই (৩৬তম বিসিএস) আমার প্রথম ভাইভা। আমার ভাইভা হয়েছিল ২০১৭ সালের মে মাসে। ভাইভা বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন উজ্জল বিকাশ দত্ত। ভাইভায় সিরিয়াল ছিল ১০। বোর্ডে চেয়ারম্যানসহ মোট ১৪ জন ছিলেন, ১৫ মিনিটের মতো ছিলাম। চূড়ান্ত ফলাফলে কৃষি ক্যাডারে ২৩তম হয়েছি

আমি : স্যার, আসতে পারি?

প্রশ্নকর্তা : হ্যাঁ, ভেতরে আসুন।

আমি : আসসালামু আলাইকুম।

প্রশ্নকর্তা : ওয়ালাইকুম আসসালাম।

প্রশ্নকর্তা : বসুন।

আমি : ধন্যবাদ, স্যার।

প্রশ্নকর্তা : নাম কী?

আমি : মো. মতিয়র রহমান।

প্রশ্নকর্তা : কোথায় পড়াশোনা করেছেন?

আমি : শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে।

প্রশ্নকর্তা : ওহ, কৃষিবিদ!?

আমি : জি, স্যার।

প্রশ্নকর্তা : ফার্স্ট চয়েস কী?

আমি : বিসিএস পুলিশ ক্যাডার।

প্রশ্নকর্তা : কৃষি নিয়ে পড়াশোনা করেছেন; কিন্তু প্রথম পছন্দ পুলিশ ক্যাডার, কেন?

আমি : স্যার, আমার প্রবল ইচ্ছা (পুলিশ অফিসার হওয়া)…

প্রশ্নকর্তা : কৃষি এবং পুলিশ ক্যাডারের মধ্যে কি কোনো সম্পর্ক আছে? কেন আপনি পুলিশ অফিসার হতে চান?

আমি : স্যার, আমরা জানি—বর্তমান সময় কৃষিক্ষেত্রবান্ধব। সরকারের সঠিক দিকনির্দেশনায় আমরা খাদ্যে স্বাবলম্বী দেশ। আমাদের ফসলের ক্ষেত্র পর্যাপ্ত; কিন্তু সাপ্লাই চেইনের ব্যবস্থাপনার সুনির্দিষ্ট কোনো কাঠামো নেই। আমাদের এই খাতে আরো কাজ করতে হবে। আমি আশা করি, এই বিপণনব্যবস্থাকে সহজ ও কৃষকবান্ধব করে তুলতে কৃষি নিয়ে পড়াশোনা করা একজন ব্যক্তির পুলিশ অফিসার হিসেবে অনেক কিছু করার আছে…

প্রশ্নকর্তা : তবে কিভাবে? আদৌ কি আমাদের এমনটি দরকার?

আমি : জি, স্যার। আমাদের কৃষকরা কঠোর পরিশ্রম করছেন এবং তাঁদের পণ্যের ন্যায্য দাম পেতে লড়াই করছেন স্থানীয় বাজারে। যে পণ্য তিনি ১০ টাকা করে বিক্রি করছেন, সেই পণ্য রাজধানী শহরে ৫০ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এখানে বড় ধরনের গড়বড় আছে। এটি আমাদের সরবরাহ চেইন পরিচালনার সমস্যা। অনেক নামবিহীন গোষ্ঠী আছে, যারা কৃষকদের পণ্যমূল্যের ন্যায্য দাম পেতে বাধা এবং গ্রাহকদের জন্য উচ্চমূল্যের কারণ হয়ে উঠেছে। আমি পুলিশ অফিসার হিসেবে এ সমস্যার উৎস উদ্ঘাটন করে সমাধানে ভূমিকা রাখতে পারি।

প্রশ্নকর্তা : কৃষি নিয়ে আপনার ভালো জানাশোনা, আপনি কৃষি ক্যাডারের জন্য উপযুক্ত।

আমি : স্যার, যুক্তরাষ্ট্রে কৃষি বিভাগের পুলিশ রয়েছে, যারা শুধু কৃষিক্ষেত্র নিয়েই কাজ করে। আমাদের দেশে যেমন ট্যুরিস্ট পুলিশ, রিভার পুলিশ, শিল্প পুলিশ আছে—ঠিক এ রকম।

প্রশ্নকর্তা : আপনি কি জানেন, সরকার আপনাকে একটি নির্দিষ্ট সেক্টরে কাজের উদ্দেশ্যে বিশেষজ্ঞ (কৃষি নিয়ে পড়াশোনা) করার জন্য অনেক টাকা ব্যয় করেছে? আপনি যদি অন্য সেক্টরে কাজ করেন, তবে এখানে কে কাজ করবে?

আমি : জি স্যার, আমি জানি। তা ঠিক, তবে এই সময়ে আমাদের বিপণনব্যবস্থার জন্য কাজ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি পুলিশ অফিসার হই, তাহলে আমি এ কাজে অগ্রগামী হব। এটি আমাদের খাদ্য সুরক্ষা এবং এসডিজির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

প্রশ্নকর্তা : জিডিপিতে কৃষির অবদান কমেছে না বেড়েছে?

আমি : স্যার, বাহ্যিক দিক থেকে দেখলে জিডিপিতে কৃষির অবদান কমেছে।

প্রশ্নকর্তা : আপনার এক্সট্রাকারিকুলার অ্যাকটিভিটিস কী আছে?

আমি : বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিবেট করতাম। আমি খুব ভালো একজন ডিবেটার।

প্রশ্নকর্তা : কখনো বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে গিয়েছেন?

আমি : জি স্যার, অনেকবার গিয়েছি।

প্রশ্নকর্তা : এটা কোথায়?

আমি : ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে।

প্রশ্নকর্তা : আপনার চয়েস লিস্টে কৃষি ক্যাডার আছে তো?

আমি : জি, স্যার।

প্রশ্নকর্তা : ঠিক আছে, এখন আসতে পারেন।

আমি : ধন্যবাদ, স্যার।

শ্রুত লিখন : আব্দুন নুর নাহিদ

সৌজন্যে: কালের কণ্ঠ

এডুকেশন বাংলা/এজেড

About khan

Check Also

সফলতার গল্পঃ পাউরুটি খেয়ে দিন পার করা ছেলেটি আজ বিসিএস ক্যাডার!

বিসিএসের মৌখিক পরীক্ষা দিতে যাও’য়ার মতো ভালো কোনো পোশাক ছিল না ছেলেটির। ছিল না সকালের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *