Thursday , September 16 2021
Breaking News

গোয়াল ঘরেই পড়াশোনা, কঠিন সময় পেরিয়ে দুধওয়ালার মেয়ে আজ হাইকোর্টের বিচারপতি

একাগ্রতা, কঠোর পরিশ্রম এবং মনের জোর থাকলে মানুষের পক্ষে কোনো কাজ করাই অসম্ভব নয়। সাফল্য পেতে এই তিনটি জিনিসের কোনো বিকল্প নেই। নিদারুন মনের জোর এবং ইচ্ছাশক্তি থাকলে যে কোনো ভাবেই যে নিজের লক্ষ্যে পৌঁছানো যায় তার উদাহরন রাজস্থানের কন্যা সোনাল শর্মা। রাজস্থানের উদয়পুরের এক দুধ ব্যবসায়ীর কন্যা সোনাল এখন হাইকোর্টের বিচারপতি। ২০১৩ সালে জুডিশিয়াল সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ন হন তিনি।

এক অতি সামান্য পরিবার থেকে আসায় বাড়িতে সকল জিনিসেরই অভাব ছিল। সংসারে ছিল প্রবল অর্থাভাব। কিন্তু তার মধ্যেও সকল বাধা কাটিয়ে সোনাল আজ ডিস্ট্রিক্ট ম্যাজিস্ট্রেট। পরিবারের পক্ষ থেকে একটা সময় সোনালের পড়াশোনার খরচ জোগানো সম্ভব ছিল না। কিন্তু সেই সমস্ত বাধা বিপত্তি কাটিয়ে সোনাল আজ এই জায়গায়।

পড়াশোনার জন্য একটা সময় গোয়াল ঘরে পর্যন্ত কাটিয়েছেন সোনাল। শুধুমাত্র একটি তেলের ক্যানকে টেবিল বানিয়ে পড়াশোনা করেছেন তিনি। একই সাথে পড়াশোনার পাশাপাশি চলতো গরুদের যত্ন নেওয়া। সোনাল কলেজে যেতেন সাইকেল চালিয়ে। কারও কোনো সহযোগিতা ছাড়াই শুধুমাত্র নিজের মনের জোরকে সম্বল করে আজ তিনি এই জায়গায়।

সামান্য একজন দুধ বিক্রেতার মেয়ে হওয়ায় নানা জায়গায় তাকে অ’পমানিত ‘হতে হয়েছে। সারাদিন গোয়াল ঘরে কা’টানোর জন্য তার জুতোয় গোবর লেগে থাকতো। এই নিয়েও তাকে সকলের কাছে অ’পমানিত ‘হতে ‘হতো।

কিন্তু এসবের পরেও শুধুমাত্র প্রবল মনের জোরকে সম্বল করে আজ তিনি এই জায়গায়। সোনালের এই সাফল্যে আজ খুবই খুশি তার পরিবার। আজ তার পরিবারের আশা সোনালের মতো এরকম আরও অনেক মেয়েরা এভাবেই সাফল্যের পথ দেখুক।

About khan

Check Also

সৃজিতের আস্থার প্রতিদান দিতে চাই: অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন

আজমেরী হক বাঁধন। যাকে নিয়ে নানা সময় নানান গুঞ্জন শোনা গেছে। তবে এবার দীর্ঘদিনের নানা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *