Wednesday , October 21 2020
Breaking News
Home / Exception / ভাগ্যবদল! মাত্র 30 টাকা বিনিয়োগ করে এক রাতেই রাজমিস্ত্রি হলেন 99 লক্ষ টাকার মালিক!

ভাগ্যবদল! মাত্র 30 টাকা বিনিয়োগ করে এক রাতেই রাজমিস্ত্রি হলেন 99 লক্ষ টাকার মালিক!

কথাতে আছে ভাগ্যের চাকা যে ঠিক কখন কার ঘরে তা কেউ জানে না । এই ভাগ্যের চাকার একদিকে যদি সুখি সাফল্য জীবন থাকে তাহলে অন্য দিকে থাকে অসুখী জীবন । জীবনচক্রে প্রতিনিয়ত প্রতিটা মানুষের ক্ষেত্রে ঘুরতে থাকে ভাগ্যের চাকা। কারোর সময়ের আগে তো কারো সময়ের পর । কিন্তু আমর’া এই ভাগ্যের চাকতে ঘোরানোর জন্য করে চলি দিনরাত পরিশ্রম । তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো লটারি টিকিট কা’টা।

অনেকের বিশ্বা’স যে এই লটারি টিকিটের মাধ্যমে ফিরতে পারে ভাগ্য । বদলে যেতে পারে জীবনের সকল কষ্ট । কিন্তু তেমন আর ঠিক হয়ে ওঠে না । এবার তেমনটাই হল। আর এমন একজনের সাথে হল যার হয়তো সত্যি ভাগ্যের চাকা ঘোরাটা নিতান্তই দরকার ছিল।

হুগলির আরামবাগের বাসিন্দা নয়ন দুলে। পেশায় রাজমিস্ত্রি । প্রতিদিন চলে অন্নের জন্য লড়াই । দিনের শেষে কিভাবে অন্ন আসবে তা রীতিমতো তাকে ভাবিয়ে তোলে প্রতিনিয়ত। উপায় একটাই। রাজমিস্ত্রি কাজ। সেই কাজ করে যতটুকু অর্থ আসে তা দিয়ে কোন রকম ভাবে সংসার চালিয়ে নেওয়া যায় ।

কিন্তু এর পাশাপাশি মাঝেমধ্যে বাকি সবার মতই ভাগ্যের চাকা ঘোরানোর জন্য নয়ন কাটতেন লটারি । তেমন কোনো সাফল্য আসেনি এর আগে। কিন্তু হাল ছাড়েনি নয়ন । উপার্জন করা ওই টাকা থেকে কিছু টাকা বাঁচিয়ে প্রতিনিয়ত কাটতে থাকে লটারি । এবং একসময় দেখা গেল ভাগ্য তার সাথ দিয়েছে।

পেশায় রাজমিস্ত্রি ওই নয়ন ৩০ টাকার একটি লটারি কাটে এবং রাতরাটি হয়ে যায় কোটিপতি। । লটারীতে প্রথম পুরস্কার ছিলো এক কোটি টাকা । নয়ন পান সেই প্রথম পুরস্কার । নিমিষে উদাও হয় তার জীবনের সব কষ্ট । ঘুঁচে যায় সব অন্ধকার ।

তবে তিনি জানিয়েছেন এক কোটি টাকা পেলেও রাজমিস্ত্রির কাজ তিনি চালিয়ে যাব’েন । ওই টাকায় করবেন নিজের স্বপ্ন পূরণ । আর সেই স্বপ্ন হলো নিজের ছেলে মেয়েকে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করে মানুষ করা । এর থেকে আর বড় স্বপ্ন কি ‘হতে পারে একজন খেঁটে খাওয়া মধ্যবিত্ত বাবার?

About Dolon khan

Check Also

তিনদিনে হু হু করে পড়ল সোনার, বড়সড় পতন রুপোর

তিনদিন পর অবশেষে ভারতীয় বাজারে পড়ল সোনার দর। ম’ঙ্গলবার এমসিএক্স সূচকে ১০ গ্রাম ডিসেম্বর গোল্ড ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

x