Sunday , July 25 2021
Breaking News
Home / Exception / বাসর রাতে ৮ বার স’হবাস, ফের করতে চাওয়ায় স্বা’মীকে কো’পাল নববধূ

বাসর রাতে ৮ বার স’হবাস, ফের করতে চাওয়ায় স্বা’মীকে কো’পাল নববধূ

সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তার স্বা’মীকে ঘু’মের ও’ষুধ খাইয়ে মাথায় উপ’র্যুপরি কু’পিয়ে আ’হত ক’রেছে। সোমবার (১৯ অক্টোবর) রাতে সিরাজগঞ্জে পৌর এলাকার রামগাঁতি গ্রামে এ ঘ’ট’না ঘ’টে।-ভিডিওটি দেখতে নিচের ছবির উপর ক্লিক করুন

আরোও পড়ুনঃ স্বা’মী দেশে ফেরার কথা শুনে বড়ি খেয়ে স্ত্রীর কান্ড!—ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে গরু মো’টা-তাজাকরণ বড়ি খেয়ে জনু আক্তার (২২) নামে এক গৃ’হবধূ মা’রা যায় । তার লা::’শ উ’দ্ধার ক’রে ম’য়নাত’দন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল

কলেজ হা’সপাতা’ল ম’”‘র্গে প্রেরণ, ক’রেছে পাগ’লা থা’না পু’””লিশ।স্থা’নীয় ও থা’না সূত্রে জা’না যায়, উপজে’লার লংগাইর ইউনিয়নের, পূর্ব গোলাবাড়ি গ্রামের প্রবাসী শাকিল মিয়ার স্ত্রী জনু আক্তার শাশুড়ির সাথে বসবাস ক’রতেন। শাকিল মিয়ার প’রামর্শে জনু

আক্তার গফরগাঁওয়ে এসে শাশুড়ির স’ঙ্গে বসবাস শুরু ক’রেন। বিয়ের সময় জনু আক্তারের স্বা’স্থ্য খুবই কম ছিল। শাকিল মিয়া দেশে ফি’রে স্ত্রী’কে এতটা স্বা’স্থ্যহীন দেখে পছন্দ নাও ক’রতে পারেন-এ আ’শ’ঙ্কায় তিনি দীর্ঘদিন ধ’রে স্বা’স্থ্য বৃ’দ্ধির জন্য গরু

মো’টা-তাজাকরণ বড়ি খেয়ে আসছিলেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে খাওয়া-দাওয়া শেষে ট্যা’বলে’ট খেয়ে ঘুমিয়ে পরেন জনু আক্তার। পরে ঘুমের মধ্যেই তিনি মা::’রা যান। স্থা’নীয় লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে পাগ’লা থা’নার

অফিসার ই’নচার্জ শাহিনুজ্জামান খানের নেতৃত্বে পু’লিশ তের লা’::শ উ’দ্ধার ক’রে ম’য়::নাত’দন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হা’সপাতা’ল ম’র্গে প্রেরণ ক’রে।

পাগ’লা থা’নার ও’সি শাহিনুজ্জামান খান বলেন, লা””’শ উ’দ্ধারের সময় ঘরে গরু মো’টা- তাজাকরণ ট্যা’বলে’টের খালি প্যাকেট পাওয়া গেছে। ধারণা করছি গৃহবধু স্বা’স্থ্য বৃ’দ্ধির জন্য এই ট্যা’বলে’ট খেতেন।ঘুমের মধ্যেই মা’রা গেছেন তিনি। লা’{“”শ ম’র্গে প্রেরণ ক’রা হয়েছে। ম’য়::নাত’দন্ত রি’পো’র্ট এলেই সত্যটা জা’না যাবে।

About khan

Check Also

নোবেলের সাথে জবার বিয়ে, প্রকাশ্যে মুখ খুললেন ‘কে আপন কে পর’-এর জবা

কয়েক মাস আগে নেটদুনিয়ায় জবা ওরফে পল্লবী শর্মা (Pallavi sharma) এবং বাংলাদেশের গায়ক নোবেল ( ...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *