Monday , December 6 2021
Breaking News

আজানরত অবস্থায় মা’রা গেলেন মুয়াজ্জিন

বরগুনার আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় আছে বলে জানান মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর মেয়ের অসুস্থতার খবর জানিয়ে বলেন, তার মেয়ের চার থেকে পাঁচটি দাঁত নষ্ট হয়ে গেছে। ইনফেকশন হয়ে গলা-মুখে ঘা হয়ে গেছে কিছু খেতে পারে না। ঘুমাতে পারে না। সেলের মধ্যে থাকা আর কবরে থাকা সমান। সবসময় অসুস্থ থাকে। তাই খুবই দুর্বল হয়ে গেছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, মিন্নির মুক্তির সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন তিনি। এদিকে মিন্নিকে এক বছরেরও বেশি সময় দেখতে না পেরে কষ্ট নিয়ে তার মাও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

মোজাম্মেল হোসেন কিশোর আরও জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন কাশিমপুর কারাগারে অসুস্থ মিন্নিকে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন কারা কর্তৃপক্ষ। তবে মিন্নির বাবার দাবি, কারা কর্তৃপক্ষের চিকিৎসা পর্যাপ্ত নয়। প্রধান বিচারপতির কাছে উন্নত চিকিৎসার আবেদন করলেও এখনও উন্নত চিকিৎসার নির্দেশ পাননি তারা।

মিন্নির মা জিনাত জাহান মনি বলেন, চোখের পানি ফেলতে ফেলতে দিন পার করছি। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত মিন্নির সঙ্গে দেখাও করতে পারিনি। তবে মাঝে মধ্যে ফোনে কথা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৬ জুন স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে কলেজে আনতে যান স্বামী শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ। আগে থেকেই হত্যার পরিকল্পনা করে কলেজের সামনে ওঁত পেতে থাকে নয়ন বন্ড বাহিনী। বরগুনার দায়রা জজ আছাদুজ্জামান গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির মধ্যে স্ত্রী মিন্নিসহ ছয়জনকে ফাঁসির আদেশ দেন। এ মামলায় মোট আসামি ২৪ জন। বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়। এরপর বরগুনা জেলা কারাগার থেকে মিন্নিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। সেই থেকে ওই কারাগারেই রয়েছেন মিন্নি।

বরগুনার আলোচিত শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ হত্যা মামলার দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি কারাগারে অসুস্থ অবস্থায় আছে বলে জানান মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর মেয়ের অসুস্থতার খবর জানিয়ে বলেন, তার মেয়ের চার থেকে পাঁচটি দাঁত নষ্ট হয়ে গেছে। ইনফেকশন হয়ে গলা-মুখে ঘা হয়ে গেছে কিছু খেতে পারে না। ঘুমাতে পারে না। সেলের মধ্যে থাকা আর কবরে থাকা সমান। সবসময় অসুস্থ থাকে। তাই খুবই দুর্বল হয়ে গেছে।

তিনি আরও জানিয়েছেন, মিন্নির মুক্তির সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছেন তিনি। এদিকে মিন্নিকে এক বছরেরও বেশি সময় দেখতে না পেরে কষ্ট নিয়ে তার মাও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

মোজাম্মেল হোসেন কিশোর আরও জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন কাশিমপুর কারাগারে অসুস্থ মিন্নিকে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন কারা কর্তৃপক্ষ। তবে মিন্নির বাবার দাবি, কারা কর্তৃপক্ষের চিকিৎসা পর্যাপ্ত নয়। প্রধান বিচারপতির কাছে উন্নত চিকিৎসার আবেদন করলেও এখনও উন্নত চিকিৎসার নির্দেশ পাননি তারা।

মিন্নির মা জিনাত জাহান মনি বলেন, চোখের পানি ফেলতে ফেলতে দিন পার করছি। করোনার শুরু থেকে এখন পর্যন্ত মিন্নির সঙ্গে দেখাও করতে পারিনি। তবে মাঝে মধ্যে ফোনে কথা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ২৬ জুন স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নিকে কলেজে আনতে যান স্বামী শাহনেওয়াজ রিফাত শরীফ। আগে থেকেই হত্যার পরিকল্পনা করে কলেজের সামনে ওঁত পেতে থাকে নয়ন বন্ড বাহিনী। বরগুনার দায়রা জজ আছাদুজ্জামান গত বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির মধ্যে স্ত্রী মিন্নিসহ ছয়জনকে ফাঁসির আদেশ দেন। এ মামলায় মোট আসামি ২৪ জন। বাকিদের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়। এরপর বরগুনা জেলা কারাগার থেকে মিন্নিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। সেই থেকে ওই কারাগারেই রয়েছেন মিন্নি।

About khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *